অপ্রতুল খাদ্য সহায়তা নিয়ে ফটোশেসন উৎসব 

মনিরুল ইসলাম কুয়াকাটা (মহিপুর)প্রতিনিধি:

করানার মহামারির সংক্রমন ঠেকাতে নির্দশনা দেয়া হয়েছে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে। মানুষজনকে বাড়িঘর থেকে বের হতে নিষেধ করা হয়ছে। পুরা জেলাক লকডাউন করা হয়ছে।

পটুয়াখালীর অনেক হাঁট-বাজার মানুষে সয়লাব হয়েযাচ্ছে। বসছে সাপ্তাহিক হাট-বাজার। এছাড়াও বিকালে হলেই গ্রামীন হাটে বাজার বাড়ছে মানুষের ভীড়। বাজায় থাকছেনা সামাজিক দূরত্ব। ফলে সরকারের করানার বিস্তার রোধ সামাজিক দূরত্ব বজায়ের কার্যক্রম মারাত্মকভাব ব্যাহত হচ্ছে। এ অবস্থায় জেলার অধিকাংশ ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায় গঠিত করানা বিস্তার রোধর কমিটি অকার্যকর হয়ে আছে এমন অভিযাগ সচতেন মহলের।

সরজমিনে, রবিবার ধানখালীর নামোরহাঁটে বসছে জমজমাট সাপ্তাহিক হাট। সোমবার বিকলে ধানখালীর কালুরহাটে দেখা গেছে জমজমাট সাপ্তাহিক হাট। মঙ্গলবার কলাপাড়ায় বসছে জমজমাট সাপ্তাহিত হাট। মহিপুর বন্দরে প্রতি সন্ধ্যায় চলে গণসমাগম। ইট ভাটার মালিকরা তাদের ভাটার কার্যক্রম চালু রখছেন। প্রতিনিয়ত প্রায় শতাধিক শ্রমিক ভাটায় জরো হয় ট্রলার কিংবা ট্রলিতে ইট লোড-অঅনলোড করা হয়। অপরদিক জেলায় লকডাউন চলমান থাকায় থমকে গেছেনিন্ম আয়ের মানুষের জীবনের চাকা।

নিত্য দিনের মত শ্রম বিক্রী করতে না পারায় পরিবার পরিজন নিয় খেটে খাওয়া মানুষেরা রান্নার চুলা জ্বালাতে যখন হিমশিম খাচ্ছে। চাল, ডাল, তেল, আলু, লবন, পিয়াজ, সাবান সম্মিলিত প্রধানমত্রির খাদ্য সহায়তার ঘোষনা এসব মানুষের জীবনে নতুন আলোর সঞ্চার করছে। খেটে খাওয়া মানুষগুলোর মুখে হাসি ফুটিয়েছে। সরকারের এ খাদ্য সহায়তা অপ্রতুল হলেও ক্ষুধার্ত মানুষ গুলার আক্ষেপ নেই। এদিকে মানুষের বাড়ী বাড়ী খাদ্য সহায়তার প্যাকেজ নিয়ে ক্ষুধার্ত মানুষগুলাকে দাড় করিয়ে এক শ্রনীর ফটোশেসন কারীরা সামাজিক যোগাযাগ মাধ্যমে নেতার পক্ষে ত্রান বিতরনের প্রচার চালাচ্ছে।

বিভিন্ন সংগঠনের নাম যৎসামান্য খাদ্য সহায়তা নিয় প্রচারনায় ব্যস্ত হয়ে পড়ছে এক শ্রনীর মানুষ। ফেইসবুক খুললেই ক্ষুধার্ত মানুষদর সাথে নেতার অনুসারীদের ছবি দেখা যায়। একটি খাদ্য প্যাকেজ বিতরন করতে দখা যায় ১০-১৫জনকে। ইচ্ছার বিরুদ্ধে অপ্রতুল খাদ্য সহায়তা নিয়ে ফটোশেসনকারীদের দুরাত্ম নিয়ে বিরক্ত প্রকাশ করছন এসব খেটে খাওয়া নিম্ন আয়ের মানুষ।

কলাপাড়া উপজলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) জগৎবন্ধু মন্ডল জানান, সোমবার শেষ বিকলে লালুয়ার বানাতিবাজার গিয়ে জনসমাগম বন্ধ করে দিয়েছেন।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: